W3vina.COM Free Wordpress Themes Joomla Templates Best Wordpress Themes Premium Wordpress Themes Top Best Wordpress Themes 2012

দাউদকান্দিতে এসএসসি’র ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ

Filed under: দাউদকান্দি |

কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার অধিকাংশ বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত ফি থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। মন্ত্রণালয় ও বোর্ডের সিদ্বান্তকে বৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির যোগসাজশে এ অতিরিক্ত টাকা আদায় করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রালয় কর্তৃক অতিরিক্ত ফি আদায়ের প্রজ্ঞাপন জারি হওয়ার পর উপজেলা মাধ্যমিক কর্মকর্তার আগামিকাল (বৃহস্পতিবার) থেকে তদন্ত শুরু করবে জানান।

আজ বুধবার সরেজমিনে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবকদের সাথে আলাপকালে জানা যায়, দাউদকান্দি উপজেলার ৩০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে প্রায় ৫হাজার শিক্ষার্থী ২০১৭ সালে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহনের জন্য ফরম পুরন করেছে। উপজেলার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই এবার এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিয়ম নীতি তোয়াক্কা না করে প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণসহ পরিচালনা কমিটি অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমন হরিলুট তা যেন দেখার কেউ নেই। ফলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোর বেঁধে দেয়া সময়সূচী পেরুলেও অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের জন্য শিক্ষার্থীরা ফরম পূরণে ব্যর্থ হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। দাউদকান্দি উপজেলার মালিগাও উচ্চ বিদ্যালয়, নবগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়, চশই উচ্চ বিদ্যলয়, পাঁচগাছিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, বারপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়সহ প্রায় ২০টি বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পাওয়া যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গৌরীপুর সুবল আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়ের একাধিক  অভিভাবক বলেন, বোর্ডেও ফি কত আমরা সঠিক জানিনা , তবে আমরা কাছ থেকে ৩ থেকে ৪ হাজার টাকার মধ্যে  আমাদের  ছেলে মেয়েদের পরীক্ষার ফরম পুরন করিয়েছি। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আনিসুর রহমান বলেন, আমাদের বোর্ড সভার সিদ্বান্ত অনুযায়ী বিদ্যালয়ের উন্নয়নের জন্য অতিরিক্ত টাকা নেয়া হচ্ছে। তবে এটাতে কমিটির নির্বাচিত ৪ সদস্যের মধ্যে আমি সহ ২জনের সম্মতি ছিলনা।
ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ সেলিম মিয়া অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন,  আমাদের বিদ্যালয়ে   অনেক গরীব শিক্ষার্থী  রয়েছে যারা ম্যানেজিং কমিটির সুপারিশে কম টাকায় ফরম পুরণ করেছে। তাদেরসহ আমরা এভারেজ ২হাজার দুই’শ টাকা নিয়েছি।
ইলিয়টগঞ্জ রাবি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শহীদুল ইসলাম বলেন, আমাদের স্কুলে বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত ফি দিয়েই ছাত্র/ছাত্রীদের ফরম ফিলাপ করা হয়েছে।  কোন অভিভাবক বলতে পারবে না আমরা অতিরিক্ত টাকা নিয়েছি। তবে অতিরিক্ত ক্লাশের ব্যাপারে যে টাকা দিবে সে ক্লাশ করতে পারবে। অতিরিক্ত ক্লাশের ব্যাপারে ছাত্র/ছাত্রীদের বাদ্যবাধকতা নেই। যার মনে চায় সে টাকা দিয়ে ক্লাশ করতে পারবে।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা  জানান, শিক্ষা মন্ত্রালয় কর্তৃক একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে যে সব স্কুল অতিরিক্ত ফি নিয়েছে ওই সব স্কুলের প্রধান শিক্ষকদের আগামিকাল ডাকা হবে। প্রমান পেলে অতিরিক্ত টাকা ফেরৎ দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

You must be logged in to post a comment Login